সহপাঠীকে রক্ষা করতে গিয়ে হাসপাতালে ২ ছাত্র

হাসপাতালে আহত শিক্ষার্থীরা  © সংগৃহীত

বখাটের হাত থেকে সহপাঠীকে রক্ষা করতে গিয়ে সশস্ত্র হামলার শিকার হয়েছেন দুই শিক্ষার্থী। মাথায় ব্যান্ডেজ করা অবস্থায় ওই দুই শিক্ষার্থী হাসপাতালের বেডে বসেই জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে মাগুড়ায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে বেঙ্গাবেরইল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী জেএসসি পরীক্ষা শেষে ইজিবাইকে করে বাড়ি ফিরছিল। তারা মহিষাডাঙ্গা মসজিদ এলাকায় পৌঁছলে জোবায়েদসহ বেশ কয়েকজন বখাটে ইজিবাইকটি থামিয়ে উর্মি নামে একটি মেয়ের চুল ধরে নামিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এ সময় তাদের প্রতিহত করতে গেলে রামদা ও হাতুড়ি নিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে মেসকাত ও ইউনুসসহ ৩ পরীক্ষার্থী আহত হয়। আহতদের মধ্যে মেসকাত ও ইউনুসকে গুরুতর অবস্থায় মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে হাসপাতালেই তাদের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে এঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পরীক্ষার্থীরা জানায়, মাগুরা শহরের পুলিশ লাইন্স স্কুলে সদর উপজেলার বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জেএসসি পরীক্ষার্থীদের আসন ব্যবস্থা করা হয়। গত ২ তারিখ থেকে শুরু হওয়া জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পরীক্ষাকেন্দ্রে যাওয়া-আসার পথে শিক্ষার্থীরা মহিষাডাঙ্গা এলাকায় বখাটেদের ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে।

এদিকে ঘটনার পর বুধবার রাত ১১টার দিকে আহত পরীক্ষার্থীদের পক্ষে বেঙ্গাবেরইল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ গোবিন্দ চন্দ্র সাহা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

সদর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার পর থেকেই বখাটেদের আটকের জন্য চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি পরীক্ষার্থীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ ৫ জন এজাহার নামীয়সহ অজ্ঞাত কয়েকজনের নামে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ