সাড়ে ৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ: রমেক অধ্যক্ষসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পূর্বানুমোদন ব্যতীত রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের ভারি যন্ত্র ও সরঞ্জামাদি ক্রয়ের অভিযোগে রমেক হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. মো. নূর ইসলামসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

নিয়ম বহির্ভূতভাবে এসব যন্ত্রাদি ক্রয়ে ৪ কোটি ৪৮ লাখ ৮৯ হাজার ৩০০ টাকা লোপাটের মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। রংপুর দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক ডা. মো. ফেরদৌস রহমান বৃহস্পতিবার বাদী হয়ে এ মামলা করেছেন।

রমেক হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. মো. নূর ইসলাম ছাড়া অন্য আসামিরা হল- রংপুর মেডিকেল কলেজের সহাকারী অধ্যাপক ডা. মো. সারোয়াত হোসেন, বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোম্পানির (৫/ বি তোপখানা রোড) স্বত্বাধিকারী ডা. মো. জাহের উদ্দিন সরকার, আ. সাত্তার সরকার (জাহের উদ্দিনের আত্মীয়), জাহের উদ্দিনের ছেলে আহসান হাবিব এবং ইউনিভার্সেল ট্রেড কর্পোরেশনের (দিনাজপুর) স্বত্বাধিকারী আসাদুর রহমান।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দুদক রংপুর শাখার উপ-সহকারী পরিচালক ডা. মো. ফেরদৌস রহমান দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, রমেকের অধ্যক্ষসহ ৬জন অনুমতি ছাড়াই ভারি যন্ত্র ও সরঞ্জামাদি ক্রয় করেন। সেই ক্রয়ে তারা প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকা লোপাট করেছেন বলে তদন্তে বেরিয়ে আসে। তাই তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বিষয়টি সম্পর্কে আরো জানতে তিনি দুদক রংপুর শাখার জনসংযোগ কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেন।

ঘটনার বিষয়ে জানতে দুদক রংপুর শাখার জনসংযোগ কর্মকর্তা কনক কুমারের সাথে যোগাযোগ করা হলে সাংবাদিক পরিচয় শুনে তিনি ফোন কেটে দেন। এরপর তার ব্যবহৃত মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

দুদক রংপুর সমন্বিত কার্যালয়ে এ মামলার আবেদন করা হয়। দণ্ডবিধি ৪০৯/৪২০/৪৬৮/ ৪৭১/১০৯ ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় এ মামলা করা হয়।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ