সহপাঠীকে ধর্ষণ, সেই ছাত্রলীগ সভাপতি বহিষ্কার

মনপুরা সরকারি ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসান রনি  © সংগৃহীত

ভোলার মনপুরা সরকারি ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিব হাসান রনির (২৪) বিরুদ্ধে তার এক সহপাঠীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। এঘটনায় রনিকে সংগঠন থেকে বহিস্কার করেছে জেলা ছাত্রলীগ। সোমবার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহীম চৌধুরী পাপন ও সাধারণ সম্পাদক মো. রিয়াজ মাহমুদের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ভোলা জেলা শাখার জরুরি সিদ্ধান্তে জানানো যাচ্ছে যে, মনপুরা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি মো. রাকিব হাসান রনিকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ও অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকায় তাকে পদ হতে বহিষ্কার করা হলো।

উল্লেখ্য, ওই ছাত্রী ও কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতির বাড়ি মনপুরা উপজেলার মনপুরা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চরযতিন গ্রামে। তারা একই কলেজে পড়াশোনা করতেন। গত এক বছর আগে ওই ছাত্রীতে রাকিব হাসান রনি প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। এতে ছাত্রী রাজি হয়নি।

২০১৮ সালের ৬ জুন সালে রাকিব তাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে সে রাজি হয়। পরে কিছুদিন তাদের প্রেম চলে। গত ১৪ এপ্রিল রাকিব হাসান ওই ছাত্রীকে দেখা করার জন্য মনপুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসতে বলে। সেখানে বিয়ের করার কথা বলে ধর্ষণ করে।

এ ছাড়াও ২ সেপ্টেম্বর দুপুরে তার বাড়িতে আসতে বলে ছাত্রীকে। বাড়িতে গেলে সেখানেও তাকে ধর্ষণ করে। বিয়ে করবে না বলে তাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে ওই ছাত্রী যাবে না বললে তাকে মারধর করে। পরে স্থানীয়রা মেয়েটিকে উদ্ধার করে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে মেয়েটি মামলা দায়ের করেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ