স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানি: আ. লীগ নেতার এক বছরের জেল

যশোরের কেশবপুর উপজেলায় স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টার দায়ে আবদুল লতিফ নামে আওয়ামী লীগের এক নেতার এক বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। তাঁকে আজ শনিবার সকালে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য ও বেগমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য কামরুজ্জামান বলেন, আবদুল লতিফ (৪৫) আওয়ামী লীগের বেগমপুর ওয়ার্ডের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তাঁর বাড়ি উপজেলার বেগমপুর গ্রামে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার তৃতীয় শ্রেণি পড়ুয়া ছাত্রী গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ছাতা কিনতে বেগমপুর বাজারে যায়। ছাতা কিনে বাড়ি ফেরার পথে ওই স্কুলছাত্রীকে বাজারের একটি গলিতে আটকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালান লতিফ।

পরে মেয়েটি বাড়িতে ফিরে গিয়ে পরিবারকে ঘটনাটি জানালে গতকাল শুক্রবার রাত আটটার দিকে বেগমপুর বাজারে সালিস বসানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ রজব আলীকে আটক করে। পরে কেশবপুরের ইউএনও মিজানুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে লতিফের এক বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এ বিষয়ে কেশবপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহজাহান আহম্মেদ বলেন, লতিফকে আজ সকালে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। লতিফ ছয় মাস আগেও আরেক মেয়ের শ্লীলতাহানি করেছিলেন।


মন্তব্য