চাকরি পেতে নারী প্রার্থীর নগ্ন ছবি, অতপর...

ভারতের চেন্নাইয়ের তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার এক সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার নগ্ন ছবির বিনিময়ে সহজেই চাকরি পাইয়ে দেওয়া কাজে নেমেছিলেন! চাকরির লোভে ৬০০ নারীও পাঠিয়েছিলেন তাদের নগ্ন ছবি।

সূত্রে জানা যায়, নিজের অফিসেই একটি ভুয়া নিয়োগের অফিস খুলে দেদার ‘ব্যবসা’ চালাচ্ছিলেন ক্লেমেন্ট রাজ সেঝিয়ান ওরফে প্রদীপ নামের ভারতের এক নাগরিক। দেওয়া হচ্ছিল পাঁচতারকা হোটেলে লোভনীয় চাকরির টোপ। তার জন্য পাঠাতে বলা হয় নগ্ন ছবি। এভাবে প্রায় ১৬টি রাজ্যের প্রায় ৬০০ নারীকে প্রতারণা করেছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত রক্ষা হয়নি। ঠাঁই হল জেলে।

দেশটির স্থানীয় পুলিশ জানায়, একটি আইটি সংস্থায় চাকুরিরত প্রদীপের সখ ছিলো বিভিন্নভাবে নারীদের ফোন নম্বর সংগ্রহ করা। তারপর তাদের সঙ্গে কথা বলে এই কাজ করতেন। চলত ব্ল্যাকমেলিংও।

তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, নারীদের সঙ্গে কথা বলার সময় নিজেকে বড় একটি হোটেলের ম্যানেজার হিসেবে পরিচয় দিতেন প্রদীপ। তারপর ওই নারীদের মোটা বেতনের চাকরির প্রস্তাব দিতেন। প্রথম ফোনে কথা বলতেন। তারপর দ্বিতীয় রাউন্ডের ইন্টারভিউ নিতেন। এরপরই হোয়াটসঅ্যাপে নগ্ন ছবি পাঠাতে বলতেন। ভিডিও কলেও নগ্ন হতে বলতেন তিনি। পাশাপাশি সফটওয়্যারের মাধ্যমে সেটির ভিডিও রেকর্ড করে রাখতেন।

এই বিষয়ে তাকে কোনো ধরনের প্রশ্ন করলে জবাব দিতেন, যেহেতু কাজটি ফ্রন্ট অফিসে তাই কোম্পানি নারী কর্মচারীদের শারীরিক গঠন সম্পর্কে খুবই সচেতন। তাই এই নগ্ন ছবি পাঠাতেই হবে।

পুলিশের মিয়াপুর ডিভিশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার এস রবি কুমার বলেন, যে গ্যাজেটগুলো উদ্ধার করা হয়েছে, সেগুলোকে পাঠানো হয়েছে ফরেন্সিক ল্যাবরেটরিতে। আপাতত ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করছে পুলিশ।


মন্তব্য