কবরস্থানে জায়গা সংকট, পুড়িয়ে ফেলা হচ্ছে করোনা আক্রান্তের লাশ

প্রতীকী

মেক্সিকোর নাজেওয়ারকোয়িওটো শহরে মৃত্যুর হার বেশি হওয়ায় সেখানে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ লাশ সমাহিত করতে হিমশিম খাচ্ছেন। শহরটির কেন্দ্রীয় কবরস্থানেও এখন পর্যাপ্ত জায়গা সংকট তৈরি হয়েছে। তাই সেখানে অনেক লাশ পুড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। ডয়চে ভেলের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

নগরে লাশ পোড়ানো স্থানের কর্মীরা জানিয়েছেন, মানুষ এত দ্রুত মারা যাচ্ছে যে তাদের সমাধিস্থ করা আর সম্ভব হচ্ছে না। তাই এখানে লাশ পুড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। প্রতিদিন আটটা বা তারও বেশি লাশ পোড়ানো হচ্ছে।

নাজেওয়ারকোয়িওটো শহরের অবস্থান মেক্সিকোর রাজধানী মেক্সিকো সিটির পাশেই। সেখানকার অনেক বাসিন্দা মূলত ছোটখাট ব্যবসা করে জীবন চালান। করোনাকালে তাদের পক্ষে জীবন চালিয়ে নেয়া বেশ দুরুহ হয়ে উঠেছে।

দেখুন: করোনায় মৃত মুসলিমদের লাশ পুড়িয়ে ফেলছে শ্রীলংকা, তোলপাড়!

শহরটির কেন্দ্রীয় কবরস্থানে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় একটির উপর আরেকটি লাশ রাখা হচ্ছে। কিন্তু তারপরও পরিস্থিতি সামলানো যাচ্ছে না। তাই নতুন লাশ জায়গা দিতে কর্তৃপক্ষ মৃতশিশুসহ অনেকের পুরনো কফিন সরিয়েও ফেলছে।

রাস্তায় করোনায় ‍মৃত একটি শিশুর কফিন পড়ে আছে, যেটি আগে কবরস্থানে ছিল। এখন সেটিকে রাস্তায় রাখা হয়েছে। যদি তার পরিবার লাশটি অন্য কোথাও নিতে না চায় তাহলে সেটি বের করে পুড়িয়ে ফেলা হবে। আর তখন তার কফিনে নতুন কোন মৃতের জায়গা হবে।

করোনায় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর একটি মেক্সিকো। সেখানে গত ৩১ জুলাই করোনায় মৃতের সংখ্যা ছিল ৪৬ হাজার ৬৮৮ জন, আর মোট আক্রান্তের সংখ্যা চার লাখ ২৪ হাজার ৬৩৭ জন। নাজেওয়ারকোয়িওটো শহরের ক্ষতি হয়েছে সবচেয়ে বেশি। মেক্সিকোর সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এই পৌরসভায় প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৫ হাজার মানুষ বাস করেন।

এদিকে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাজ্যকে টপকে গেল মেক্সিকো। শনিবার (০১ আগস্ট) সবশেষ তথ্যে দেখা যায় দেশটিতে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৬ হাজার ৬৮৮ জনের। আর মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ২৪ হাজার ৬৩৭ জন। 


মন্তব্য