হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুত ভারতের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন

  © ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য রেডি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। তবে এর আগে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে, ১৫ অগাস্ট নয় করোনার ভ্যাকসিন ‘কোভ্যাক্সিন’ জনসাধারণের জন্য আসতে ২০২১ সাল পর্যন্ত সময় লেগে যাবে।

এ বিতর্কের মাঝে আজ সোমবার নতুন করে আইসিএমআর জানিয়েছে, ‘করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য রেডি করা হচ্ছে’।

এদিকে দেশটি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই বলেছে। প্রতিদিন হাজার-হাজার মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। এর মাঝেই দেশটির দুটি সংস্থা করোনার ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছে বলে দাবি করেছে। দুটি সংস্থাকেই সেই প্রতিষেধক মানবদেবে পরীক্ষা করে দেখার জন্য অনুমতি দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার অফ ইন্ডিয়া।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তাড়াহুড়ো করে ভ্যাকসিন বাজারে আনলে এর উল্টো ফলও হতে পারে। সেই কারণেই ধাপে ধাপে প্রয়োগের পরে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্পর্কে ১০০ শতাংশ নিশ্চিত হলে একমাত্র তবেই করোনার ভ্যাকসিন বাজারে আনা উচিত।

বিজ্ঞান মন্ত্রকের এক কর্মকর্তা জানান, ‘করোনার ভ্যাকসিন আগামী ১৫ অগাস্ট বাজারে আনার দাবিকে খারিজ করে দিয়েছে। ২০২১ সালের আগে কখনই এই ভ্যাকসিন বাজারে আনা হবে না’।

এর মাঝে আজ সোমবার ফের আইসিএমআর জানায়, ‘করোনার ভ্যাকসিন মানবদেপে প্রয়োগের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, প্রথম ধাপে ১০০০ রোগীর ওপর এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষা করা হবে। তারপর ৬ সপ্তাহ অপেক্ষা করা হবে। তারপর দ্বিতীয় ধাপে ভ্যাকসিনটির পরীক্ষা হবে’।


মন্তব্য