মাদ্রাসায় পড়া ছেলেটিই আজ জাতীয় দলের ক্রিকেটার

হাসান মাহমুদ  © সংগৃহীত

সদ্য শেষ হওয়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) দারুণ বোলিং করে সবার নজর কেড়েছেন তিনি। আর এই নজর কাড়া পারফরমেন্সে আসন্ন পাকিস্তান সফরে জাতীয় দলে সুযোগ করে নিয়েছেন জাতীয় দলে। জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন পূরণ হওয়া এই ক্রিকেটার পড়তেন মাদ্রাসায়। মাদ্রাসার ক্লাস ফাঁকি দিয়ে খেলতেন ক্রিকেট।

বলছিলাম সদ্য জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়া হাসান মাহমুদের কথা। বিপিএলে ঢাকা প্লাটুনের হয়ে খেলা হাসান মাহমুদের। শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) থেকে ফোন করে জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার খবর জানানো হয় হাসান মাহমুদকে। বিপিএলে ঢাকা প্লাটুনের হয়ে ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১৪২.৪০ কিলোমিটার গতিতে বোলিং করে ১৩ ম্যাচে ১০ উইকেট শিকার করেন হাসান মাহমুদ।

২০ বছর বয়সী এ তরুণ ক্রিকেটার বাড়ি লক্ষীপুর পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা মো. ফারুক ও গৃহিণী মাহমুদা খাতুন রানীর ছোট ছেলে। তারা দুই ভাই ও তিন বোন।

হাসানের বাবা ফারুক জানান, পড়ালেখার পাশাপাশি ক্রিকেট খেলায় হাসানের আগ্রহ ছিল। কিছু কিছু সময় খেলার মাঠ থেকে সে পরীক্ষা দিতে যেত। মাদ্রাসা ফাঁকি দিয়ে সে ক্রিকেট খেলত। আশা করছি সে ভালো বোলিং করে সে দেশের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখবে।

জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত হাসান মাহমুদ বলেন, জাতীয় দলে সুযোগের বিষয়টি বিসিবি থেকে আমাকে ফোন করে জানানো হয়েছে। চেষ্টা করব দেশের জন্য নিজের সেরাটা উজাড় করে দেয়ার। এ জন্য লক্ষ্মীপুরসহ দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ