সৌদি আরবে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের কৃতিত্ব

  © টিডিসি ফটো

মদিনা ইসলামিক ইউনিভার্সিটির ডিনশিপ অফ স্টুডেন্টস অ্যাফেয়ার্স-এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো সপ্তাহব্যাপী আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা-২০১৯। প্রায় দেড় শতাধিক দেশের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে এ প্রতিযোগীতায়।

কোরআন তিলাওয়াত, গান, অভিনয়, আবৃত্তি, কুইজ প্রতিযোগিতা, কারাতে, জুডো, বক্সিংসহ ইনডোর আউটডোরের অসংখ্য ক্রীড়া প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয় । ‘নিজের দেশকে চিনিয়ে দাও’ নামে সবচেয়ে আকর্ষণীয় ইভেন্ট ছিলো এ প্রতিযোগিতায়।

দেড় শতাধিক দেশের শিক্ষার্থীরা তাদের ইতিহাস ঐতিহ্য তুলে ধরার পাশাপাশি নিজ দেশের পরিচয় যেন অন্যান্য দেশের শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরতে পারে, মূলত এজন্যই আয়োজন করা হয়েছিল এ ইভেন্টটি।

এতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অংশগ্রহণ করে সাত সদস্যের একটি দল। যেখানে বাংলাদেশের দলের পক্ষে অংশ গ্রহণ করেন আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্রগ্রামের (আইআইইউসি) প্রাক্তন দুই কৃতি শিক্ষার্থী সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মুনাজ্জির আহমাদ ও আবু বকর বিন কাশেম।

নির্ধারিত ১০মিনিটের মধ্যেই এ দলটি দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য তুলে ধরার পাশাপাশি দেশীয় সংস্কৃতি, খেলাধুলা এবং সংক্ষিপ্ত নাটিকা পরিবেশন করেন।

এদিকে আইআইইউসির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বলছেন, বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশ আর লাল সবুজের পতাকাকে সবার উপরে তুলতে পারার এমন অর্জনে আমরা সত্যিই গর্বিত। এভাবেই আমাদের আইআইইউসিয়ানরা দেশের বাইরেও আমাদের দেশ এবং আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরবে সেই প্রত্যাশা করি।

উল্লেখ্য, মুনাজ্জির আহমাদ দাওয়াহ এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ থেকে অনার্স শেষ করে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে স্কলারশিপ নিয়ে মদীনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাড়ি জমান ২০১৮ সালে। তিনি দাওয়াহ ক্লাবের নির্বাচিত জি.এস ছিলেন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সেরা অভিনেতা ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ড্রামা কম্পিটিশনে টানা দুইবার অর্জন করেছিলেন ‘বেস্ট এক্টর এওয়ার্ড’।

অপর দিকে আবু বকর বিন কাশেম কোর'আনিক সাইন্সেস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মেধাবী ছাত্র ছিলেন। অনার্সে থাকাকালীন সময়েই প্রথমে তুরষ্ক অতঃপর মদীনা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্কলারশিপ লাভ করলে তিনি মদীনাতেই পাড়ি জমান ২০১৬ সালে। তিনিও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সেরা অভিনেতা ছিলেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ