গিনেস রেকর্ডে অন্তর্ভুক্ত হবে ‘অমর একুশে বইমেলা’

গিনেস রেকর্ডে অন্তর্ভুক্ত হবে ‘অমর একুশে বইমেলা’

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি বলেছেন, অমর একুশে গ্রন্থমেলা সময়কাল ও দর্শক বিবেচনায় পৃথিবীর বৃহত্তম বইমেলা। মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত এ বইমেলায় প্রায় কোটি দর্শকের আগমন ঘটে। তবে এ দর্শক সংখ্যার আনুষ্ঠানিক কোন হিসাব নেয়া হয় না। আগামী অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২১ হতে সঠিক দর্শক সংখ্যা গণনাপূর্বক পৃথিবীর বৃহত্তম গ্রন্থমেলা হিসেবে এটিকে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বাংলা একাডেমি আয়োজিত মাসব্যাপী
‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, গ্রন্থমেলার চেয়ে বইমেলা শব্দটি বেশি হৃদয়গ্রাহী, চিত্তাকর্ষক, আপন ও সার্বজনীন মনে হয়। তাছাড়া দীর্ঘকাল থেকে বইমেলা শব্দটি প্রচলিত এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও অমর একুশে গ্রন্থমেলা উদ্বোধনের সময় এ বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করেছেন। সেজন্য আগামী বছর থেকে ‘অমর একুশে বইমেলা’ নামে এ মেলার নামকরণ করা হবে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই শুধু ফেব্রুয়ারিকে কেন্দ্র করেই নয়, বছরব্যাপী লেখালেখির চর্চা হোক এবং মানসম্মত বই প্রকাশিত হোক।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল মান্নান ইলিয়াস। শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী। অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০ এর প্রতিবেদন পাঠ করেন মেলা আয়োজন কমিটির সদস্য-সচিব ও বাংলা একাডেমির পরিচালক ড. জালাল আহমেদ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ