ইথানলে সারবে করোনাভাইরাস— ব্যবহার পদ্ধতি জানালেন অধ্যাপক আলিমুল

  © টিডিসি ফটো

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ফলে লকডাউন অবস্থায় রয়েছে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ। ফলে ঘরবন্দি কয়েকশ কোটি মানুষ। প্রাণঘাতী এ ভাইরাস থেকে বাঁচতে বিজ্ঞানীরা নানা পর্যায়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ঠিক এ সময়ে ইথানলে সারবে কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) রোগটি— এমন দাবি করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) মাইক্রোবায়োলজী বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আলিমুল ইসলাম।

তার এমন দাবি কিছুটা হলেও আশার আলো ছড়িয়েছে দেশের গবেষকদের মধ্যে। তবে অধ্যাপক ড. মো. আলিমুল ইসলাম জানান, বিষয়টি নিয়ে তিনি আশাবাদী হলেও এখনো ল্যাবরেটরিতে গবেষণা করেননি। সরকার চাইলে তিনি এ বিষয়ে গবেষণা করতে তিনি প্রস্তুত আছেন। এ জন্য প্রয়োজন বিসিএল-৩ টাইপের ল্যাব ও করোনার রোগী।

শ্বাসতন্ত্রের সংক্রামক রোগে ইথানল বেশ কার্যকরী। তিনি নিজেই নিজের দেহে তা প্রয়োগ করে সুফল পেয়েছেন। অধ্যাপক আলিমুল ইসলাম তাঁর এমন মতামতটি নিজের ফেসবুকে পেইজেও শেয়ার করেছেন। সেখানে তাঁরই এক শিক্ষার্থী জানিয়েছেন যে, জাপানেরও একজন গবেষক একইভাবে গবেষণা চালিয়ে সফল হয়েছেন।

ড. আলিমুল বলেন, যেকোনো ভাইরাসের দুটি আবরণ থাকে। ইথানল কিংবা সাবান প্রয়োগে ওই দুটি স্তর গলে যায়। এমতাবস্থায় ধ্বংস হতে অনেকটাই বাধ্য ভাইরাসটি। বাংলদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই বিজ্ঞানী জানান, আরএনএ গোত্রের করোনা ভাইরাসের বেশ কয়েকটি জাত রয়েছে। কোভিড-১৯ তার একটি। করোনার কোনো কোনো গোত্রকে ইথানল প্রয়োগে ধ্বংস করা যায়। আরএনএ গোত্রের প্রতিটি ভাইরাসের চরিত্র প্রায় কাছাকাছি বলে ইথানলে কোভিড-১৯ রোগটি সারবে বলে মনে করছেন তিনি। এক্ষেত্রে করোনা আক্রান্ত রোগী কী মাত্রায় এই ইথানল ব্যবহার করবেন সেটিও তিনি জানান। তিনি বলেন, ইথানল-মিশ্রিত কুসুম গরম পানির কুলকুচি করে বা বাষ্প টেনে এর সুফল পাওয়া যেতে পারে। 

‘প্রথমে একটি চায়ের কাপে অথবা একটি ছোট সাইজের প্লাস্টিক মগে ৬০ মিলি ফুটন্ত গরম পানি ঢালুন তারপর এতে অ্যাসিটোন ফ্রি খাঁটি ঘন ৪০ মিলি ইথানল (ইথাইল অ্যালকোহল ৯৯.৯%) ঢেলে ৩০ সেকেন্ড থেকে ১ মিনিট পর্যন্ত নাক দিয়ে ঐ বাষ্প টানতে থাকুন।’

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) মাইক্রোবায়োলজী বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আলিমুল ইসলাম বলেন, এটি কোনো চিকিৎসা নয়। চিকিৎসা সহায়ক পদ্ধতি।

তিনি বলেন, সাধারণ সর্দি জ্বর কাশি ও গলা ব্যাথাসহ শ্বাসকষ্টের রোগীরাও এটি করে ফল পেতে পারেন। করোনায় আক্রান্ত রোগীরাও এটি করে কার্যকর ফল পেতে পারেন। তবে ইথানল ব্যবহারে সরকারের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অনুমতি নিতে হবে। কারণ ক্লিনিক ও ল্যাবরেটরিতে গবেষণার কাজ ছাড়া এর ব্যবহারে অনুমতি নেই। সরকার চাইলেই এটি সম্ভব।

ড. আলিমুল বলেন, তিনি নিজে ও তাঁর আটজন ছাত্র ইথানল ব্যবহার করে এরই মধ্যে জ্বর ও সর্দি কাশিসহ শ্বাসকষ্টের সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। তবে ইথানল ব্যবহারে অ্যালার্জি রয়েছে এমন হৃদরোগী, অ্যাজমা ও ডায়াবেটিস রোগীদের এটি ব্যবহার বারণ বলে জানান তিনি।

জানা যায়, ড. আলিমুল ইসলাম একজন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বনামধন্য গবেষক। তিনি এর আগে ডেঙ্গু, চিকনগুনিয়া, সার্স করোনা-১ সহ বিভিন্ন ভাইরাস নিয়ে গবেষণা করেছেন। ২০০৩ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অধীনেও কাজ করেছেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ