বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

অর্গানোগ্রামে প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পদের দাবি

  © টিডিসি ফটো

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রস্তাবিত নতুন অর্গানোগ্রামে প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পদ সৃষ্টি এবং পশুপালন ও পশু চিকিৎসা পেশার জন্য স্বতন্ত্র দুটি অধিদপ্তরের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) পশুপালন অনুষদ ছাত্র সমিতি। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে পশুপালন অনুষদের সম্মেলন কক্ষে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পশুপালন অনুষদের সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুল হাসান। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, সম্প্রতি প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর একটি যুগোপযোগী অর্গানোগ্রামের খসড়া তৈরি করে। এরপর তা বাস্তবায়নের জন্য নানা ধাপ পেড়িয়ে এন্ট্রি লেভেলের প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা (এলইও) পদটি বহাল রেখেই অর্গানোগ্রামের খসড়া অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়।

কিন্তু গত ১০ সেপ্টেম্বরে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে যে অর্গানোগ্রামটি প্রকাশিত হয় সেখানে একদল ষড়যন্ত্রকারীদের প্রত্যক্ষ মদদে উক্ত পদের প্রস্তাবনাটি বাদ পড়ে। যা দেশে প্রাণিসম্পদ উন্নয়নের অন্তরায় এবং তা প্রাণিসম্পদকে ধ্বংসের দিকে ধাবিত করবে।

পশুপালন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে সংবাদে সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পশুপালন অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ এবং পশুপালন ছাত্র সমিতির সহ-সভাপতি মো. ইশতিয়াক আহমেদ পিহানসহ বিভিন্ন লেভেলের ছাত্র নেতৃবৃন্দ।

এদিকে প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা পদের দাবিতে পশুপালন অনুষদের সব লেভেলের শিক্ষার্থীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য সকল ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করেছে। এমনকি দাবী পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন অনুষদের ছাত্রনেতারা।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ