তিন বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া শম্পার দায়িত্ব নিলেন সংসদ সদস্য

  © সংগৃহীত

তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া শম্পার ভর্তি হওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তা। তবে সেই শঙ্কা কাটছে। তার দায়িত্ব নিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস।

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার মেরীগাছা গ্রামের জেলে মো. কামাল হোসেনের মেয়ে শম্পা। শম্পা এবার গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরবিপ্রবি), কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) এবং রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) চান্স পেয়েছে।

সংসদ সদস্যের মেয়ে যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কোহেলী কুদ্দুস মুক্তি জানান, কয়েকটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে বিষয়টি তাদের নজরে আসে।

তিনি জানান, বাবা অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুসের দেয়া ১০ হাজার এবং তার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কল্লোল ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ৫ হাজার টাকা মিলিয়ে ১৫ হাজার টাকা শম্পাকে দেয়া হয়েছে। এ টাকা দিয়ে সেবিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবে। ভর্তির পর প্রতি মাসে তাকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে।

জানা গেছে, দরিদ্র বাবা শম্পার ভর্তির খরচ জোগাতে পারছিলেন না। এ নিয়ে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। শম্পা এবার বশেমুরবিপ্রবিতে মেধাতালিকায় ২৬তম, ইবিতে ৪৩৬তম এবং বেরোবিতে ২৬৯তম স্থান অধিকার করেছে।

এর আগে মেরীগাছা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে শম্পা বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ ৪.৫ পেয়ে এসএসসি পরীক্ষা পাস করে। এছাড়া বনপাড়া শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা অনার্স কলেজ থেকে জিপিএ ৩.৫ পেয়ে এইচএসসি পাস করে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ