ভর্তিচ্ছুদের হলে রাখতে বেরোবি ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

  © টিডিসি ফটো

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) আবাসিক হলগুলোতে ভর্তিচ্ছুদের রাখার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সোমবার (৪ নভেম্বর) দুপুর ২ টায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রশাসনিক ভবনে প্রায় ২ ঘণ্টা অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন তারা। এসময় বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, আগামী ১০ থেকে ১৪ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। নিরাপত্তার স্বার্থে সে সময় শুধুমাত্র বৈধ আবাসিক শিক্ষার্থীরা হলে অবস্থান করতে পারবে। এছাড়া ডরমিটরিতে কোনো অতিথি অবস্থান করতে পারবে না বলে গত ২৯ অক্টোবর ভর্তি কমিটির চতুর্থ সভায় সিদ্ধান্ত হয়। এ খবর ছড়িয়ে গেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়।

শিক্ষার্থীরা বলেন, যারা ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসবেন তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিথি। অতিথিদের নিরাপত্তা ও দেখাশুনার দায়িত্ব বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের। কিন্তু তারা উদ্দেশ্যমূলকভাবে ভর্তিচ্ছুদের হয়রানি করছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগ সভাপতি পোমেল বড়ুয়া বলেন, অন্য বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে থাকা-খাওয়া এবং যাতায়াতের ব্যবস্থা করছে, সেখানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান পুরোই উল্টো। ভর্তি পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি জড়িত।

শহীদ মুখতার এলাহী হল সভাপতি হাসান আলী বলেন, হল খোলা থাকবে কিন্তু কোনো এপ্লিক্যান্ট থাকবেনা এমন একটি অযৌক্তিক সিদ্ধান্ত তারা কিভাবে নিলো তা আমার বুঝে আসেনা। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে তাদের কাছে বিনীত অনুরোধ করেছিলাম এ সিদ্ধান্তটা পুনর্মূল্যায়ন করা যায় কিনা তারা তাতে কর্ণপাত না করে তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকলে আজ আমরা বাধ্য হয়ে এখানে এসেছি।

তিনি বলেন, বিগত বছরগুলোতে ভর্তি পরীক্ষার সময় শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে। কিন্তু কোনো শিক্ষার্থীকে নিয়ে এ ধরনের কোনো অভিযোগ ওঠেনি তাহলে কেন ভর্তিচ্ছুরা হলে থাকতে পারবেনা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে এর মধ্যে দাবি আদায় না হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন।

বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের পিএস (ব্যক্তিগত সহকারী) আমিনুর রহমান বলেন, উপাচার্য স্যার আগামীকাল শিক্ষার্থীদের সাথে বসতে চেয়েছেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ