১৬ দিনেও ফল হয়নি: ডিন বললেন— রেজাল্ট নিয়ে কথা বলার ইচ্ছা নেই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিট ও কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের অধীনে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে গত ২০ ও ২১ সেপ্টেম্বর। ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর যথাক্রমে ১৬ ও ১৫ দিন পার হলেও কবে নাগাদ ফল প্রকাশিত হতে পারে তা বলছেন না সংশ্লিষ্টরা।

গত ২০ সেপ্টেম্বর ‘ক’ ইউনিটের এবং ২১ সেপ্টেম্বর ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবছর ‘ক’ ইউনিটের ১ হাজার ৭৯৫টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছিল ৮৮ হাজার ৯৫৫ শিক্ষার্থী। আর ‘খ’ ইউনিটের ২ হাজার ৩৮৩টি আসনের বিপরীতে ৪৫ হাজার ৩ জন ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছিল।

এতোদিন পরেও ফলাফল প্রকাশ করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্তরা। ফলাফল কবে নাগাদ প্রকাশ করা হবে কিংবা এখন পর্যন্ত ফলাফল প্রস্তুত হয়েছে কিনা নাকি আদৌ খাতা মূল্যায়ন করা শেষ হয়েছি কিনা এসব বিষয়ে উপযুক্ত কোনো উত্তর দিতেই রাজি হননি দুই ইউনিটের সংশ্লিষ্ট দুই ডিন।

এবছর নৈর্ব্যক্তিক ও লিখিত দুই ধরণের প্রশ্নে নতুন নিয়মে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে শুধু নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হতো। তখন পরীক্ষার দুই অথবা তিন দিনের মধ্যেই ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হতো। কিন্তু এবার নতুন নিয়মে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় লিখিত প্রশ্নের উত্তর মূল্যায়নে সময় বেশি লাগছে বলে দাবি করছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার এতোদিন পরেও ‘ক’ ও ‘খ’ ইউনিটের ফলাফল দিতে দেরি হওয়ার কারণ জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, লিখিত প্রশ্নের উত্তর যাচাই-বাছাইয়ে মূলত ফল প্রকাশে দেরি হচ্ছে। ফলাফল সম্পর্কে এর বেশি কিছু তিনি জানাতে পারেননি। এজন্য সংশ্লিষ্ট ডিনদের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন তিনি।

১৬ দিনেও ‘ক’ ইউনিটের ফলাফল প্রকাশ করতে না পারার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়কারী বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. তোফায়েল আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘আমি রেজাল্টের বিষয়ে কোনো কথা বলতে ইচ্ছুক না। রেজাল্ট যে সময় হয়, সে সময় প্রেস রিলিজ দিয়ে জানানো হবে।’

দেরি হওয়ার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আর কোনো কথা নেই। এর বাইরে আর কোনো কথা নেই। দেরি হওয়ার কারণ-টারণ আর কোনো আলাপ নাই। খাতা দেখা শেষ হলে তো রেজাল্ট দেবে?’

‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়কারী কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘রেজাল্ট কবে দেওয়া হবে তা জানানো হবে।’ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার ১৫ দিন হয়ে গেলেও কোনো দেরি হয়নি বলে দাবি করেন তিনি। এছাড়া, ফলাফল প্রস্তুত হয়েছে কি না জানতে চাইলেও এ সম্পর্কে কিছু বলতে রাজি হননি অধ্যাপক দেলোয়ার।

গত ১৩ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল ১৪ দিন পর গত ২৬ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হয়। ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ২৬ হাজার ৯৬০ জন আবেদনকারীদের মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন ২৫ হাজার ৯৫৮ জন। এর মধ্যে অনুপস্থিত ছিলেন এক হাজার ৫ জন। পাস করেছেন দুই হাজার ৮৫০ ছাত্রছাত্রী যা মোট পরীক্ষার্থীর ১০.৯৮ শতাংশ। আর অনুত্তীর্ণ হয়েছেন ২৩ হাজার দুজন।

প্রসঙ্গত, প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে এবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা নতুন নিয়মে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগে যেখানে এক ঘন্টা সময়ে ১২০ নম্বরের শুধু নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতো, এবার নতুন নিয়মে ৭৫ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক ও ৪৫ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষার জন্য ৫০ মিনিট এবং লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪০ মিনিট করে মোট দেড় ঘন্টার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় এবছর।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ