উচ্চহারে ভর্তি আবেদন ফি, কমানোর দাবিতে আল্টিমেটাম

  © টিডিসি ফটো

শিক্ষা কোনো পণ্য না, শিক্ষা আমাদের অধিকার। এটা নিশ্চিত করা প্রশাসনের দায়িত্ব ও কর্তব্য। কিন্তু দিনদিন তারা শিক্ষাকে পণ্যে পরিণত করছে। ভর্তি ফরমের উচ্চমূল্যের প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের বক্তব্যে এসব কথা উঠে আসে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন ফর্মের উচ্চমূল্য নির্ধারণের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ মিছিল ও ছাত্র সমাবেশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। রবিবার দুপুর দেড়টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। সমাবেশ থেকে ফরমের দাম পুনঃনির্ধারণের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ১২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেয়া হয় আন্দোলনকারীরা।

ফারসি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রঞ্জু হাসানের সঞ্চালনায় বক্তারা বলেন ‘দেশ এখন চরম বিষাদ অবস্থা পার করছে। এমতাবস্থায় ভর্তি পরীক্ষার বাড়তি ফি নির্ধারণ করে ছাত্রদের পরীক্ষা দেওয়া অনিশ্চিত করে ফেলেছে। রাবি প্রসাশন ভর্তি জন্য যে ফি নির্ধারণ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আমরা এই শিক্ষা বাণিজ্যের বর্ধিত টাকা কমিয়ে গরীব-মেধাবী শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ করে দিতে প্রসাশনের কাছে আমরা অনুরোধ করছি।

এসময় জুনায়েদ মাহমুদ সাদিক বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৯৮০ টাকা যেখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৩৫০ টাকা করা হয়েছে। সে জায়গায় থেকে বুঝা যায় ফি কতটা বেশি। যা গরীব ও অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের পক্ষে মেনে নেওয়া অসম্ভব। বিশ্ববিদ্যালয় প্রসাশন কি জানে না যে দেশের বন্যা কবলিত এলাকার মানুষ এত টাকা দিয়ে ফরম কেনার সামর্থ্য রাখেনা।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন হিসাববিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাসুদ রানা, একই বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদী, দর্শন চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশরাফুল আরমান সম্রাট, রসায়ন বিভাগের সাকিল হোসেন, প্রীতম সাহা হরকাবেদ প্রমুখ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ