জালিয়াতিরোধে স্কুলের ভর্তি পরীক্ষায় পেন্সিল নিষিদ্ধ

সরকারি স্কুলের ভর্তি পরীক্ষায় কলম বা পেন্সিল দুই মাধ্যমেই লিখার নিয়ম ছিল। কিন্তু এ বছর এ নিয়েমে পরিবর্তন এনেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর। এ বছর পেন্সিলে লেখা ভর্তি পরীক্ষার খাতা বাতিল বলে গণ্য হবে বলে জানিয়েছে অধিদপ্তরের ভর্তি কমিটি।  ঘষামাজা করে খাতায় নতুন করে লেখাসহ বিভিন্ন ধরণের জালিয়াতিরোধে সম্প্রতি এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  বৃহস্পতিবার রাতে শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে পরীক্ষার হলে কলম নিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দিয়ে পরীক্ষার্থীদের মোবাইলে এসএমএস পাঠানো হয়। 

তবে এ ধরনের সিদ্ধান্তের কারণে অনেক পরীক্ষার্থীকেই বিপাকে পড়তে হচ্ছে।  খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অনেক শিক্ষার্থী এতদিন ধরে পেন্সিলে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছেন।  কিন্তু হঠ্যাৎ করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়ায় অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে পরীক্ষার্থীদের। 

জানা যায়, এর আগে দ্বিতীয় শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার্থীরা কলমের বদলে পেন্সিল দিয়ে লেখার সুযোগ পেতেন। অন্যান্য শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার্থীদের কলমে লেখার নিয়ম ছিলো।  অন্যদিকে প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার বদলে লটারীর মাধ্যমে প্রার্থী নির্বাচন করা হয়। 

ঢাকার সরকারি মাধ্যমিকগুলো ১৭ থেকে ১৯ ডিসেম্বর ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে। প্রথম শ্রেণিতে ভর্তির লটারি করা হবে ২০ ডিসেম্বর। ভর্তির আবেদন ফি ১৭০ টাকা টেলিটকের মাধ্যমে নেয়া হয়। অনলাইনে আবেদন শেষে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ টাকা জমা দেয়া যাবে। এবারও স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে মোট আসনের ৫৯ শতাংশ কোটা রাখার প্রস্তাব আছে। এর মধ্যে আছে ‘এলাকা’, ‘সরকারি প্রাইমারি স্কুল’, ‘মুক্তিযোদ্ধা’, ‘প্রতিবন্ধী’ ও ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারী’ কোটা। আবেদন কার্যক্রম পরিচালিত হবে টেলিটকের মাধ্যমে। www.dshe.gov.bd এবং www.teletalk.com সাইটের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। 


মন্তব্য